Golpo – গল্প (শিক্ষাই জীবনের সূচনা)

Golpo টি লেখা হয়েছে শিক্ষা নিয়ে। আর আমরা মন থেকে গল্পটির নাম দিলাম শিক্ষাই জীবনের সূচনা। তাহলে গল্পটি শুরু করা যাক।

golpo – গল্প (শিক্ষাই জীবনের সূচনা)

অনেক বছর আগের কথা। দূর পাহাড়ের চূড়ায় একটি পরিবার বসবাস করত। তারা দীর্ঘদিন ধরেই সেই পাহাড়ের চূড়ায় বসবাস করে এবং তাদের পারিবারিক জীবন ছিল অনেক সুখের ও সাত ছন্দের। 

সেই পরিবারে ছিল একটি মেয়ে দুটি ছেলে। কিন্তু তাদের আপন বলতে কেউ ছিলনা। একদিন সে মেয়েটিও ছেলে দুটি একটি গুরুর কাছে শিক্ষা নেওয়ার জন্য চলে যায়। এইভাবে কিছু দিন কাটার পর তারা তাদের মা বাবাকে দেখার জন্য তাদের সেই পাহাড়ের উপরে যে বাড়িটি আছে সেখানে যায়। 

এবং সেখানে গিয়ে দেখতে পায় যে সেই পাহাড়ের চূড়ায় কেউ নেই এবং তাদের সেই থাকার ঘর ফাঁকা  অবস্থায় দেখা যায়।

এরপর এই দেখে তারা চিন্তায় পড়ে যায় যে সব ওলট-পালট হয়ে গেছে কি করে।ঘরবাড়ি ভাঙা অবস্থায় দেখার পর তারা তাদের বাড়ির আশপাশ দিয়ে দেখতে থাকে। কিন্তু তার প্রমাণ হিসেবে কিছুই খুঁজে পায়না, এরপর তাদের মনে নানান প্রশ্ন থাকে। 

এরপর তারা মনে হাজার প্রশ্ন নিয়ে সেই স্থান থেকে চলে যায় তাদের গুরুর কাছে। এরপর তারা সময়ের সাথে সাথে বড় হতে থাকে এবং তাদের গুরুর কাছে শিক্ষা লাভ করতে থাকি।এইভাবে কিছু বছর কাটার পর সেই মেয়েটি এবং দুটি ছেলে একটি ছোট গ্রামে গিয়ে বসবাস করতে থাকে। তাদের জীবন বেশ কিছুদিন অত্যান্ত সুখ-স্বাচ্ছন্দ্যের মধ্যে দিয়ে কাটতে থাকলে।

হঠাৎ একদিন তারা পাশের গ্রামের একটি মেলাতে ঘুরতে গিয়ে তাদের সেই মা-বাবাকে দেখতে পায়। এরপর তারা তাদের মা-বাবার সঙ্গে দেখা করার জন্য এগিয়ে যায়। এরপর তারা বলে ওঠে হ্যাঁ এরা হলো আমাদের মা বাবা। এই বলে তারা তাদের মা-বাবাকে জড়িয়ে ধরে কাঁদতে থাকে এবং বলতে থাকে তোমরা এতদিন কোথায় ছিলে। কিন্তু তাদের সেই বৃদ্ধ মা-বাবা তাদের মেয়ে ও দুই ছেলে কে চিনতে পারে না যে তারা কারা।

সেই বৃদ্ধ মা-বাবা তাদের সন্তানদের চিনতে না পারায় তার সন্তানরা তাদের দেখা ঘটনাটি বলে। যে তারা তাদের বাড়িতে গিয়েছিল কিন্তু তাদের মা-বাবা কাউকেই তারা খুঁজে পায়নি এবং তাদের বাড়িটি পড়েছিল ভেঙে থাকা অবস্থায়। এরপর সেই বৃদ্ধ মা-বাবা সবকিছু বুঝতে পারে এবং পুরো ঘটনাটি বলে যে তাদের সাথে কি ঘটনা ঘটেছিল।

তাদের বৃদ্ধ মা-বাবা এই সম্পর্কে বলে যে অনেকদিন আগে তাদের বাড়িতে একদল ডাকাত তাদের সবকিছু লুটে নিয়ে যায়। এর ফলে তারা গরিব দুঃখিত পরিণত হয় এবং তাদের দিন চলে খেতে চাষ করা দিনমজুর হিসাবে। এবং তারা অনেক কষ্টে দিন কাটাতে থাকে।

সেই সময় সেই বৃদ্ধ মা-বাবার মনে  প্রশ্ন ছিল যে তাদের সন্তানরা কেমন আছে? তারা কি করছে? এই ভেবে তারা মনে মনে কষ্ট পেতে থাকে। সেই বৃদ্ধ মা-বাবা অনেক কষ্টের মধ্যে দিয়ে তাদের জীবনযাত্রা কাটাতে থাকি এবং তাদের সেই সন্তানদের খোঁজ নিতে থাকে।

এরপর সেই বৃদ্ধ মা-বাবা বলল যে তোমরা কি আমাদের সেই হারানো সন্তান। এরপর তার ছেলে মেয়েরা বলে উঠলো হ্যাঁ। এরপর সেই ছেলেমেয়েগুলো বলে উঠলো যে তোমরা কোথায় গিয়েছিলে ?কেন গিয়েছিলে তা আমাদের কিছু জানাওনি কেন? আমরা তোমাদের অনেক খুজেছি?অনেক গ্রামের মানুষের কাছে তোমাদের ব্যাপারে অনেক খোঁজখবর নেওয়ার চেষ্টা করেছি। কিন্তু তারা বলছিল যে তারা কিছুই জানেন না। এরপর তাদের ছেলে মেয়েরা বলে উঠলো চলো মা-বাবা আমাদের সঙ্গে চলো তোমরা।

এরপর তারা ছোট্ট একটি গ্রামে একসঙ্গে বসবাস করতে শুরু করলো। তারা কিছুদিন পর জমিদার বাড়ি থেকে খবর আসলো যে সেই ছেলে দুটি জমিদার বাড়ি থাকবে এবং তাদের কাজ করবে। এই কথা শুনে সেই ছেলে দুটি রাজি হয়ে গেল জমিদারবাড়ি কাজ করার জন্য। তাদের মাইনেও  ছিল বেশ ভালো। এরপর তারা ধীরে ধীরে একটি জায়গা কিনে সেখানে বসবাস করতে শুরু করে ও বড় একটি অট্টালিকা নির্মাণ করে তাদের বাসস্থান হিসেবে।

আবার কিছুদিন পর সেই দুই ভাইয়ের জমানো অর্থ দিয়ে একটি ব্যবসা শুরু করে তারা, এবং বেশ লাভ হয় সেই ব্যবসায়। এরপর ধীরে ধীরে তাদের অর্থ দিন দিন বৃদ্ধি পেতে থাকে ও তারা সুখে শান্তিতে জীবন যাপন কাটাতে থাকে । এভাবে কয়েক বছর কাটার পর তারা দুই ভাই বিয়ে করে সুখে-শান্তিতে তাদের দাম্পত্য জীবন কাটাতে থাকে।

কিন্তু কয়েক বছর পর সেই বৃদ্ধ মা-বাবার যে সন্তান ছিল তাদের মধ্যে বড় ছেলের বউয়ের সন্তান না হওয়ায় তার যে ছোট ভাই ছিল তার ছেলেকে অনেক বেশি ভালোবাসতো। কিন্তু বড় ছেলে যে বউ ছিল সে ছিল একটু বেশি স্বার্থপর ও রাগী।এই কারনে তাদের দুই বৌ এর মধ্যে ঝগড়া অশান্তি লেগে থাকত। এরপর ধীরে ধীরে সেই দুই ভাই আলাদা আলাদা জায়গায় বসবাস করতে শুরু করে। এবং কিছুদিন পর তাদের বাবা এবং কয়েক বছর পর তাদের মা ও মারা যায়। এর ফলে তাদের মধ্যে কথাবার্তা ও সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়।

এরপর থেকে তারা নিজেদের মতো জীবনযাপন কাটাতে থাকে। কিন্তু তারা কোন সময় সুখে শান্তিতে থাকতে পারে না। কয়েকদিন পর তাদের ব্যবসায় মন্দা দেখা দিলে তারা ভেঙ্গে পরে।

এরপর তারা দুই ভাই নিজেদের মধ্যে কথা বললে পুনরায় একসঙ্গে ব্যবসা করতে শুরু করে ও অধিক লাভ জনক  হয়। ও তাদের জীবন পুনরায় সুখে শান্তিতে থাকে।

Golpo টি পড়ার জন্য ধন্যবাদ, আমাদের গল্প যদি আপনাদের ভালো লেগে থাকে তাহলে আপনাদের বন্ধুদের সঙ্গে golpo টি শেয়ার করতে ভুলবেন না। golpo টি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন: Bengali Motivational Story – স্বপ্ন

Leave a Comment