Porir Golpo – জলপরী ও দুই বোন

Porir Golpo: গল্পটির নাম “জলপরী ও দুই বোন”। বিশেষ করে বচ্চার এই ধরণের গল্প পড়তে ভালো বাসে। অনুগ্রহ করে গল্পটি শেষ পর্যন্ত পড়বেন।

Porir Golpo – জলপরী ও দুই বোন

অনেক বছর আগের কথা রায়পুর নামে এক গ্রামে এক জেলে বাস করত তার নাম ছিল রাজু। সে তার গ্রামের নদী থেকে মাছ ধরে যা উপার্যন হত তাই দিয়ে তার সংসার চালাত। রাজু সেই নদীর ধারে তার ছোট্ট কুটিরে তার বউ কৃষ্ণকলি সঙ্গে সে বসবাস করত। তাদের শুধু একটাই দুঃখ ছিল যে তাদের কোন সন্তান ছিল না।

বেচারা রাজু প্রতিদিন মাছ ধরতে গিয়ে নৌকায় বসে দুঃখী হয়ে থাকতো। এর কিছুদিন পর এমনই একদিন রাজু নৌকায় বসে বসে বলতে লাগল হে প্রভু আমি এমন কি পাপ করেছি, যে আমাদের আপনি নিঃসন্তান করে রেখেছেন। দয়া করে আমাদের সন্তান প্রদান করুন হে সাগর দেব। এই কথাটি বলে সে ভীষণ দুঃখী হয়ে পরলো।

ঠিক তখনই নদী থেকে আওয়াজ করে ওঠে এক জল পরী সেখানে আবির্ভূত হলো।এরপর সেই গল্পটি বলল হে মানব আমি প্রতিদিনই তোমার এই দুঃখ দেখে যাচ্ছি। এরপর জলপরী বলল আমি কি তোমার এই দুঃখ দূর করে দেবো? এরপর সেই জেলেটি বলল এই সন্তান প্রদানের কথা শুনে সে মনে মনে ভাবল এর থেকে খুশির খবর আমার আর কি হতে পারে।এরপর জেলেটি বলল দয়া করে আমায় সন্তান প্রাপ্তির জন্য আশীর্বাদ করুন। এরপর জলপরী টি বলল হ্যাঁ হ্যাঁ ঠিক আছে।

এরপর জলপরী টি বলল হ্যাঁ হ্যাঁ তোমাকে আমি একটি বাচ্চা দান করব কিন্তু একটি শর্ত আছে। জলপরী টি বলল বেশি করে খেয়াল রাখতে হবে তোমার সেই বাচ্চাটিকে। পরীটি বলল যদি তুমি খেয়াল রাখতে পারো তাহলে এক বছরের মধ্যে তোমাদের সন্তান হবে। এরপর বাজেটে বলল স্বপ্নের মতো নয় রাজকুমারীর মত রাখবো তাকে। এরপর জলপরী টি বললো আরো একটি শর্ত আছে আমি যেই বাচ্চাটি কে তোমার হাতে তুলে দেব সে যেন কোনক্রমেই নদিতেনা নামে। যদি সে নদীতে নামে তবে সেই মেয়েটির সঙ্গে সঙ্গে তোমাকেও ঝামেলা পোহাতে হবে বুঝেছ। জেলেটি এ ব্যাপারে আমি সর্বদা সতর্ক থাকবো। পরীটি বলল ঠিক আছে এই কথাটি বলে সেই পরীটি সেখান থেকে গায়েব হয়ে গেল। পরীটি যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজু করলে একটি ফুটফুটে বাচ্চা চলে আসলো। এরপর রাজু পরীর দেওয়া সেই বাচ্চাটিকে নিয়ে বাড়ি ফিরে আসলো। এবং সেই বাচ্চাটির নাম কণিকা রাখল। এরপর কিছুদিনের মধ্যেই জলপরীর কথামতো রাজুর বউ কৃষ্ণকলি কিছুদিনের মধ্যেই ফুটফুটে বাচ্চার জন্ম দিল।

Porir Golpo

এবং সেই বাচ্চাটির নাম দীপিকা রাখল। দীপিকা এবং কনিকা খুব শান্তিতে তারা বসবাস করতে লাগল। এরপর কয়েক বছর কেটে যাওয়ার পর তার বউ ভীষণ অসুস্থ হয়ে মারা গেল। এরপর রাজু তার মেয়ে কনিকাকে শেখার ছিল কিভাবে জঙ্গলে গিয়ে স্বীকার করতে হয়। এরপর তার মেয়ে কণিকাকে কথা দিতে বলে যে তুমি আর কোনোদিনও নদীর জলে নামতে পারবে না। এরপর কনিকা কথা দিল যে সে আর কোনদিনও নদীর ধারে যাবে না। এদিকে দীপিকা কে শেখানো হচ্ছিল যে সে কিভাবে নদী থেকে মাছ শিকার করবে। এরপর রাজু তার বংশ পরম্পরায় জাল চলে আসছিল সেটি তার মেয়ের হাতে তুলে দেয়। কিছুদিন পর দীপিকাও কনিকা বড় হয়ে ওঠে। এবং তাদের বাবা রাজুর বয়স বেড়ে যাওয়ায় তিনিও মারা যায়। কনিকা জঙ্গলে পশু শিকার করে এবং দীপিকা মাছ শিকার করে তাদের দিন চালাত। কিছুদিন পর দীপিকা অসুস্থ হয়ে পড়ায় সে বাড়িতেই বিশ্রাম করছিল, অন্যদিকে কনিকা নির্মম পরিহাস কারণ সে সেদিন শিকারে বের হয়েও কোন শিকার পায়নি। এরপর সে ক্লান্ত হয়ে তার বাড়ি ফিরে আসলো। এরপর সেবায় এগিয়ে ভাবতে লাগলোতার তো শরীর খারাপ সেই কিভাবে মাছ শিকারে বের হবে এই বলে সে মাছ শিকার করতে বেরিয়ে গেল।

এরপর সে নদীতে গিয়ে মাছ ধরতে লাগলো কিন্তু সে মাছ ধরার ব্যাপার কিছুই জানত না, এবং সেই জাল টি যেটি তার হাতে ছিল সেটি নদীতে ভুলবশত পড়ে গেল। সেই জন্য সেই মেয়েটিও নদীতে ঝাঁপ দেয়, কিন্তু মেয়েটি কোন সাঁতার না জানায় সে জলে ডুবে মারা গেল। এরপর তার যে মন্ত্রী ছিল তারপর থেকে সে একা হয়ে পরলো।

আমাদের এই Porir Golpo টি পরে আপনাদের ভালো লাগলে গল্পটি অবসসই শেয়ার করবেন। গল্পটি পড়ার জন্য ধন্যবাদ।

আরো পড়ুন: Motivational Story in Bengali – অহংকারই পতনের কারণ

Leave a Comment